• ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮, শনিবার
  • 31 July 2021, Saturday
মোদি - শাহ র ইস্তফা চেয়ে সারা দেশ তোলপাড়, রাজনৈতিক চাপ তীব্র হচ্ছে

মোদি - শাহ র ইস্তফা চেয়ে সারা দেশ তোলপাড়, রাজনৈতিক চাপ তীব্র হচ্ছে

ওয়েব ডেস্ক প্রতিনিধি

Updated On: 21 Jul 2021 05:05 pm

ফোনে আড়িপাতা নিয়ে উত্তাল দেশ। এই কাণ্ডের যথাযথ তদন্তের পাশাপাশি সংসদের ভেতরে-বাইরে জোরদার হলো মোদী-শাহের পদত্যাগের। আড়িপাতায় সরকারের হাত নেই, এমনটা বোঝাতে কোণঠাসা কেন্দ্র যে সমস্ত যুক্তি হাজির করছে তাতে পরিস্থিতি আরও ঘোরালো হচ্ছে। 



বিরোধীরা এই আড়িপাতাকে রাজনৈতিক চক্রান্ত বলেই আখ্যা দিয়েছে। তাঁদের কথায়, এ হলো গণতন্ত্রের উপর আক্রমণ। সিপিআই(এম)’র সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি এদিন এক টুইট বার্তায় বলেছেন, সংবিধানে স্থির করে দেওয়া ধর্মনিরপেক্ষ, গণতান্ত্রিক ভারত রাষ্ট্রকে ভাঙায় মোদী সরকারের চক্রান্ত। তাঁর দাবি, একটা উচ্চপর্যায়ের তদন্ত করে মৌলিক অধিকার ও স্বাধীনতার এই লঙ্ঘনের জন্য দোষীদের দ্রুততার সঙ্গে শনাক্ত করতে হবে। মাথাদের শাস্তি দিতে হবে। 



এই আড়িপাতাকে রাজনৈতিক প্রতারণা বলে কংগ্রেসের তরফে সাংবাদিক, বিচারপতি ও রাজনীতিকদের ফোন হ্যাক করে এই বেআইনি নজরদারির জন্য অমিত শাহকেই দায়ী করা হয়েছে। একইসঙ্গে গোটা ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকা নিয়েও তদন্তের দাবি জানিয়েছে কংগ্রেস। পুঙ্খানুপুঙ্খ তদন্তের দাবি উঠেছে সিপিআই সহ বামপন্থী দলগুলি, তৃণমূল, এনসিপি, আরজেডি ও শিবসেনার পক্ষ থেকে। 



বিজেপি যদিও এখনও দাবি করে চলেছে, মোদী সরকারের এই আড়িপাতায় হাত রয়েছে, এমন সামান্য প্রমাণও নেই। অমিত শাহ থেকে প্রাক্তন তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী রবি শঙ্কর প্রসাদ সকলেই এটাকে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র হিসাবে দেখাতে তৎপর। ঠিক সংসদ অধিবেশন শুরু আগেই কেন এই খবর ফাঁস করা হলো, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন প্রাক্তন তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী রবি শঙ্কর প্রসাদ। আর সদ্য দায়িত্বে আসা নতুন তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণোইয়ের দাবি, বেআইনি নজরদারি নাকি এদেশে সম্ভবই নয়। দু’বছর আগে যখন প্রথমবার পেগাসাসের সাহায্যে আড়িপাতার অভিযোগ উঠেছিল, তৎকালীন মন্ত্রী রবিশঙ্করও সেসময় দাবি করেছিলেন, সরকারের এব্যাপারে হাত নেই। তখন প্রসাদ বলেছিলেন, কোনও বেআইনি আড়িপাতা হয়নি। তিনি যদিও বলেননি, বেআইনি আড়িপাতা সম্ভবই নয়। 



এই আড়িপাতা নিয়ে যার পদত্যাগের দাবি জোরদার সেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ এর জন্য বিরোধী কংগ্রেস ও আন্তর্জাতিক সংগঠনের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছেন। তবে তাঁর দাবি, এই বাধা ও ব্যাঘাত ভারতের উন্নয়ন যাত্রা বিপথে পাঠাতে পারবে না। 



রাজনৈতিক বৃত্তের পাশাপাশি এদিন সংসদও উত্তাল ছিল এই পেগাসাস আড়িপাতা নিয়ে। বাদল অধিবেশনের প্রথম দিনেই ফোনে আড়িপাতাকাণ্ডে ঝড় উঠেছিল সংসদে। মঙ্গলবার দ্বিতীয় দিনেও তা নিয়ে উত্তাল হলো সংসদের দুই কক্ষই। লোকসভা এবং রাজ্যসভায় একজোটে কেন্দ্রকে আক্রমণে নামল কংগ্রেস, সিপিআই(এম), আরজেডি, ডিএমকে সহ বিরোধীরা। উভয় কক্ষেই বিরোধীদের বেশ কিছু সদস্য এনিয়ে আলোচনার জন্য মুলতুবি প্রস্তাব আনে। তবে লোকসভায় অধ্যক্ষ ও রাজ্যসভায় চেয়ারম্যান সবকটিই খারিজ করে দিয়েছেন। লাগাতার হই হট্টগোল এবং স্লোগানের জেরে শেষ পর্যন্ত এদিনের মতো মুলতুবি হয়ে যায় অধিবেশন।



কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী বিজেপি’কে জাসুস পার্টি বলে মন্তব্য করেছেন। রাজ্যসভায় বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খারগে বলেন, অমিত শাহের এখনই পদত্যাগ করা উচিত। ওর পদ ধরে রাখার কোনও এক্তিয়ারই নেই। তিনি জানান, সংসদে বিরোধীরা একযোগে জোরালোভাবে এই দাবিই তুলবে।


লোকসভায় কংগ্রেসের নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরি বলেন, মোদীজী ডিজিটাল ইন্ডিয়াকে প্রোমোট করছেন, কিন্তু আমরা দেখছি সার্ভিলেন্স ইন্ডিয়া’’।



সিপিআই(এম) সদস্যরা অধিবেশনে এর বিরুদ্ধে সরব হয়ে বলেন, ‘এনএসও’কে কী শর্তে কী দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে এবং এর জন্য সরকারি তহবিলের কত অর্থ ওই সংস্থাকে দেওয়া হয়েছে।’ 



আরজেডি’র মনোজ ঝা, শিবসেনার সঞ্জয় রাউত, আপ-এর সঞ্জয় সিং, এনসিপি’র নবাব মালিক, তৃণমূলের সৌগত রায়ও যথাযথ তদন্ত ও জড়িতদের উপযুক্ত শাস্তির দাবিতে সরব হয়েছেন। 



এদিনই এক সাংবাদিক সম্মেলনে কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালা বলেছেন, দলের প্রথম দাবি হলো অমিত শাহের অবিলম্বে অপসারণ। একই সঙ্গে এই ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকাও খতিয়ে দেখতে হবে।



তদন্তের দাবিতে সোচ্চার হয়েছে সিপিআই-ও। এদিন এক বিবৃতিতে সিপিআই বলেছে, দেশের মানুষের অধিকার রয়েছে সবকিছু জানার। তাঁদের দাবি, আড়িপাতাকাণ্ডে যৌথ সংসদীয় কমিটির তদন্তের।












অনুদিত গণশক্তি 


Recent Comments:

Leave a Comment: