• ১২ কার্তিক ১৪২৭, বুধবার
  • 28 October 2020, Wednesday
পিঠ বাঁচাতে মরিয়া পাকিস্তান ছবিঃ ইন্টারনেট

পিঠ বাঁচাতে মরিয়া পাকিস্তান

ওয়েব ডেস্ক প্রতিনিধি

Updated On: 16 Oct 2020 02:40 pm

আরও একবার সময়সীমা পেরিয়ে গেল, সন্ত্রাসবাদ এবং তার অর্থের জোগান নিয়ন্ত্রণে যে পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছিল, সেই মতো কাজ না হওয়ার কারণে আরও একবার সমস্যায় পাকিস্তান সরকার। এই পরিস্থিতিতে ফিন্যান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স (এফএটিএফ) – এর কুনজর থেকে বাঁচার জন্য মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে পাকিস্তান। ইসলামাবাদের দাবি, অর্থের বেআইনি আদানপ্রদান এবং সন্ত্রাসবাদ দমনে পাকিস্তানের ভূমিকার জন্য তাদের পুরস্কৃত করা উচিত।

মুলতানের এক জনসমাবেশে পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী শাহ মোহম্মদ কুরেশি বলেন, এফএটিএফ-এর সুপারিশ অনুযায়ী যা কিছু করনীয় ছিল তার ৮০ শতাংশ ইতিমধ্যেই করা হয়েছে। কিছুদিনের মধ্যেই তারা এফএটিএফ-এর ‘গ্রে লিস্ট’ থেকে ‘হোয়াইট লিস্ট’-এ পৌঁছে যাবেন বলে ওই জনসভায় জানিয়েছেন কুরেশি।

অন্যদিকে নয়া দিল্লির সন্ত্রাসবাদ-প্রতিরোধী আধিকারিক, যারা এই বিষয়টির ওপর নজর রাখছিলেন, দাবি করেছেন, পাকিস্তান একটি লবিং সংস্থার ওপর ভরসা করে ভুল প্রচার চালাচ্ছে। নিজেদের সমর্থনে পাকিস্তান যে সকল তথ্য তুলে ধরতে চাইছে তা বিশ্বাসযোগ্য নয় বলেই জানিয়েছেন এক বর্ষীয়ান আধিকারিক। উদাহরণ হিসেবে তিনি বলেছেন রাষ্ট্রপুঞ্জের তালিকায় নথিভুক্ত ৬৫০০ জন পাকিস্তানী সন্ত্রাসবাদী, যারা আফগানিস্তানে পাকিস্তানের হয়ে সন্ত্রাস চালাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা পাকিস্তান এখনও নেয়নি। এছাড়াও, লাহোরের সন্ত্রসবাদ বিরোধী আদালতের রায়ে দোষী সাব্যস্ত হওয়া তিন সন্ত্রাসবাদীকে যৎসামান্য শাস্তি দেওয়া হয়। এঁদের মধ্যে একজনকে ১৮ মাসের কারাবাসের নির্দেশ দিলেও পরে লাহোর হাই কোর্টের রায়ে সেই কারাবাস বাতিল হয়ে যায়। ২০,০০০ পাকিস্তানি টাকা জরিমানার বিনিময়ে মুক্তি পেয়ে যায় এই সন্ত্রাসবাদী। এই ঘটনার কয়েক মাসের মধ্যেই আদালতের রায়ে ১৯৬ জন সন্ত্রাসবাদীকে মুক্তি দেওয়া হয়।

পাকিস্তানের ভুল তথ্য দেওয়ার পুরনো ইতিহাসের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে এই আধিকারিক বলেন ২০১৮ তে এফএটিএফ-এর কাছে পাকিস্তান ৭৬০০ জন সন্ত্রাসবাদীর তালিকা পেশ করার দু বছরের মধ্যে সেই তালিকা থেকে ৩৬০০ টি নাম মুছে দেয়। দাবি করে যে সেই নামগুলি ভুল করে তালিকায় ঢোকান হয়েছিল। তালিকায় যাদের নাম থেকে গিয়েছিল তাদেরও প্রয়োজনীয় তথ্য অসম্পূর্ণ ছিল। চলতি বছরের শুরুর দিকে রাষ্ট্রপুঞ্জের নির্দিষ্ট করে দেওয়া ১৩০ জন সন্ত্রাসবাদীর মধ্যে মাত্র ১৯ জনকে চিহ্নিত করতে পেড়েছে বলে জানিয়েছিল। পাকিস্তান।